█▓▒ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস↓░▓█

█▓▒ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস↓░▓█

বিশ্ব অর্থনীতির এই পর্যুদস্ত অবস্থায় সব ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরাই চায় ব্যবসায়ীক খরচ কমাতে। নতুবা লাভের আশা করা যায় না। আর ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের শুরু এই ধারণা থেকেই। এটি নতুন কোনো বিষয় নয়। এর শুরু ১৯৮৮ সাল থেকে।এর মধ্যে অনেকেগুলো প্রতিষ্ঠান সুনামের সাথে টিকে আছে এবং বেশ কিছু ব্যবসা গুটিয়ে চলে গেছে।কিন্তু অনেকেই মনে করে ফ্রিল্যান্সিং বিষয়টি নতুন। তাই এ লেখায় আমরা সংক্ষেপে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের ইতিহাস সম্পর্কে জানবো।

▼গুরু guru ডট com Guru↓
Guruডট com হলো সর্বপ্রথম ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস। যা ১৯৯৮ সালে SOFTmoonlighter.com নামে শুরু হয়। পরবর্তীতে ২০০০ সালে এটি A2ZMoonlighterডট com এ রি-ব্যান্ডিং করা হয়। ২০০৩ এর দিকে তারা Guru.com নামের ডোমেইনটি ক্রয় করে এবং ২০০৪ এর মধ্যেই সবকিছু এতে স্থানান্তর করে। guru.com এর founder এবং CEO হলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত আমেরিকান নাগরিক ইনডার গুজলানি। guru.com ২০০৮ সালে “Ernst & Young regional entrepreneur of the year” পুরষ্কার লাভ করে। তাছাড়া guru.com ২০০২ সাল থেকে এই পর্যন্ত মোট আটবার “Pittsburgh Tech50 award” পুরষ্কার লাভ করে।

▼ ইল্যান্স (Elanceডট com):elance↓
Elance এর শরুটা Guru এর পরপরই। এটি শুরু হয় ৪ জুলাই ১৯৯৯ সালে। ইলেন্স এর কো-ফাউন্ডার হলেন Beerud Sheth এবং Srini Anumolu brazenly। Elance এর সাইটের নামকরণের একটি মজার ঘটনা আছে। এটিকে অনেকে চুরি হিসেবেও আখ্যায়িত করেছে। এম.আই.টি প্রফেসর professor Thomas Malone এর লিখিত একটি প্রবন্ধের শিরোনাম থেকে এই নামটি নেয়া হয়েছে যেটি কিনা ঠিক এর আগের বছরই লেখা হয়েছে। Elance খুব শীঘ্রই ১.২ মিলিয়ন মুলধন যোগাড় করে। নিউইয়র্কের একটি ভাড়া করা ফ্লাটে শুরু করে তারা সাফল্য অর্জন করে। মূলধন সংগ্রহের আশায় তারা সিলিকন ভ্যালিতে তাদের কার্যক্রম শুরু করে। এর দুই সপ্তাহের মাথায় তারা L. John Doerr নামের এক প্রসিদ্ধ বড় বিনিয়োগকারীর সাথে ১২ মিলিয়ন ইউএস ডলারের বিনিয়োগ চুক্তি হয়। মার্চ ২০১২ এর ভেতরে কোম্পানী তার মোট বিনিয়োগ দাঁড় করায় ২৬০ মিলিয়ন ডলারে।

ফ্রিএজেন্ট (Freeagentডট com):
▼frellacing
আরেকটি প্রশিদ্ধ ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস শুরু হয়েছিল ১৯৯৯ সালে যা এখন বিলুপ্ত। Freeagentডট com নামের এই প্রতিষ্ঠানটি শুরু হয় ৪ জুলাই ১৯৯৯। ঠিক Elance শুরু হওয়ার তারিখে। তিনমাসের মধ্যেই তারা তাদের মূলধন বাড়িয়ে ৪০ মিলিয়ন ইউএস ডলার করে এবং এক বছরের ভেতর এটি একটি নামকরা মার্কেটপ্লেসে পরিণত হয়। মাইক্রোসফট, মেটলাইফ, লোকাসফিল্ম এর মতো বড় বড় প্রতিষ্ঠানের সমর্থন থাকা সত্ত্বেও Freeagentডট com টিকতে পারেনি। ২০০৫ সালে কোনোরকম পূর্বাভাস ব্যতিত বিলীণ হয়ে যায় এটি।

▼ওডেস্ক (Odeskডট com):
২০০৪ সাল পর্যন্ত যে সকল কোম্পানী এ মার্কেটপ্লেসে আসতে চেয়েছে বা এসেছে তাদের গ্রাহককে শক্ত ভিত প্রদর্শন করতে হয়েছে। কারণ ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস তখন কিছুটা টালমাটাল। এসময়ে যে কোম্পানীগুলো মার্কেটে ছিলো এগুলো হলো- oDesk, GetAFreelancer (বর্তমানে শুধু Freelancer), GetACoder। এ কঠিন সময়টি পার করার পর পত্যেকটি কোম্পানী ব্যবসায়িকভাবে সফলতা অর্জন করেছেন।
oDesk এর প্রতিষ্ঠাতা হলো গ্রীক ছাত্র ওডিসেসে টেসাটোলাস এবং ষ্ট্রাসিস কারামানলাকিস। যারা ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসে নুতন এক ধারণার জন্ম দেয়। আর তা হলো ঘন্টাভিত্তিক কাজ এবং পেমেন্ট যাকে আমরা Hourly Payment বলি। আর এর কারণেই অল্প সময়ে ওডেস্ক ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে। ক্যারলিফোনিয়ার সিলিকন ভ্যালিতে oDesk এর যাত্রা শুরু হয়। ২০০৬ সালে ওডেস্ক তার মূলধন বাড়িয়ে ৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এ মূলধন সরবরাহ করে ভেনচার ক্যাপিটালিষ্ট এবং সিগমা পার্টনার। ওডেস্কের মূলধনে আরও বাড়তি ১৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার যুক্ত হয় ২০০৮ সালে। আর তখনই ওডেস্ক মার্কেটপ্লেসের ২য় স্থানে উঠে আসে। লাইফটাইম বিলিং সিস্টেমের কারণে Elance তখনও শীর্ষে ।

▼ফ্রিল্যান্সার(freelancerডটcom):
oDesk যখন পুরোদমে এগিয়ে চলছে তখন ‘Innovate IT’ নামের এক সুইডিস কোম্পানী GetAFreelancerডটcom নামে তাদের কার্যক্রম শুরু করে। এর উন্থানটা ছিলো একটু ধীরগতির কিন্তু বেশ দৃঢ়তার সাথে। এটি মূলত ২০০৫-২০০৯ এর ভেতর পূর্ণতা লাভ করে। ২০০৯ সালে মার্চ মাসে এর নাম পরিবর্তন করে Freelancerডটcom নামে রি-ব্যান্ডিং করা হয়। Freelancerডটcom তার মাকেটিং স্ট্রাটেজিতে সফল। কি ছিলো তার স্ট্রাটেজি? তারা ফ্রিল্যান্সারদের মধ্যে প্রতিযোগীতার ব্যবস্থা করে প্রায় ১,০০,০০০ মার্কিন ডলার পুরষ্কার দেয়। অক্টোবর ২০০৯ থেকে মার্চ ২০১০ পর্যন্ত এই সিরিজ প্রতিযোগিতায় ছিলো লগো ডিজাইন কনটেস্ট, লগো এক্সপোস কনটেস্ট, টি-শার্ট ডিজাইন কন্টেস্ট এবং অতি সম্প্রতি API প্রোগ্রামিং কনটেস্ট। সর্বোপরি ১.৫ মিলিয়ন ফ্রিল্যান্সার এতে নিয়মিত কাজ করে।

পিপল পার আওয়ার (peopleperhourডটcom):
▼পিপল
অতি সম্প্রতি আরেকটি মার্কেটপ্লেসের আগমন ঘটেছে। যেটির যাত্রা শুরু হয় ২০০৭ সালে। People Per Hour (PPH) নামের এই মার্কেটপ্লেসটির প্রতিষ্ঠাতা জেনিস থারাসেভোলো। ক্যামব্রিয়ান ইউনিভার্সিটির গ্রাজুয়েট এই গ্রীক উদ্যোক্তা শুরুতেই বড় অংকের মূলধন সংগ্রহ করতে সমর্থ হয়েছে। PPH এর উদ্যেশ্য সামান্য ব্যতিক্রম। তাদের কথা হলো, দক্ষ ফ্রিল্যান্সার এবং হাইরেট। অর্থাৎ এ মার্কেটপ্লেসটি মূলত দক্ষ প্রফেশনারদের জন্য। তাই ওখানে কাজের রেটও অন্যান্য মার্কেটপ্লেস থেকে অনেক বেশি। PPH প্রতিষ্ঠাতা জেনিস থারাসেভোলো তার এ মার্টেকপ্লেস সম্পর্কে বলেন, আমি মনে করি দক্ষ ও প্রফেসনাল ফ্রিল্যান্সারদের জন্য এটি একটি চমৎকার মার্কেটপ্লেস।

428 D0 1 T0