কুরবানি কী এবং কিছু নিয়ম What is Qurbani? Rules of korbani.

“তোমরা নিজেরা খাও, আত্মীয়- স্বজনকে দাও এবং ফকির-মিসকিনকে দান কর”

কুরবানি কী? History of Qurbani

শরিয়তের দৃষ্টিতে ১০ জিলহজ ফজর থেকে ১৩ জিলহজ সন্ধ্যা পর্যন্ত নির্দিষ্ট পদ্ধতিতে আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য পশু জবেহ করাকে কুরবানি বলে।
শাব্দিক দিক (Korbani) : কুরবানি শব্দটি আরবি কারনুন মূলধাতু হতে এসেছে। (Arabic: قربان‎) (or أضحية Udhiyyah)এর আভিধানিক অর্থ হচ্ছে : নিকটবর্তী হওয়া।
নিকটবর্তী হওয়ার মাধ্যম। যেমন বলা হয়- “সৎকর্ম দ্বারা আল্লাহর নিকটবর্তী হওয়া”
কুরবানির(Qurbani) অর্থ : সৎকাজ, নৈকট্য, সন্নিকটে, ঘনিষ্ঠ হওয়া।
কুরবানি (Qurbani)- উৎসর্গ, আত্মীয়তা, সান্নিধ্য।

rules of qurbani, qurbani-meat-distrbution

rules of qurbani, qurbani-meat-distrbution

কি ধরনের পশু কুরবানি করা যাবে? Rulings of qurbani, korbani, kurbani

> বকরী, পাঠা, খাসী, ভেড়া, দুম্বা, গাভী, ষাড়, বলদ, মহিষ, উট, এই কয় প্রকার গৃহপালিত পশু দ্বারা কুরবানী করা জায়েজ।এগুলো ব্যাতিত অন্য যত পশু যত মুল্যবানের হোকনা কেন তা দিয়ে কুরবানী জায়েয হবেনা ।
> গরু ও মহিষের বয়স কম পক্ষে দুই বৎসর হতে হবে।
> যে প্রাণী লেংড়া অর্থ্যাৎ যা তিন পায়ে চলতে পারে-এক পা মাটিতে রাখতে পারে না বা রাখতে পারলেও ভর করতে পারে না এরুপ পশু দ্বারা কুরবানী দুরস্ত হবে না।
> ভাল পশু ক্রয় করার পর এমন দোষ ত্রুটি দেখা দিয়েছে যার কারণে কুরবানী দুরস্ত হয় না-এরপু হলে সেটিই কুরবানী দেয়া দুরস্ত হবে।

পশুর গোশত কিভাবে ভাগা-ভাগী করবেন? How to proper qurbani distribution, Rules on giving Qurbani

কুরবানীর পশুর গোশত পরিবার পরিজন ও আত্মীয়-স্বজন নিয়ে তৃপ্তি সহকারে ভক্ষণ করা যাবে। গোশত বণ্টণের মুস্তাহাব নিয়ম হচ্ছে তিন ভাগ করে এক ভাগ গরীবদের, এক ভাগ আত্মীয় স্বজন ও এক ভাগ নিজে রেখে দেওয়া। নিজের প্রয়োজনে গরীবদের দান না করলেও কুরবানী আদায় হয়ে যাবে -কুরবানীর মাংসের তিন ভাগের একভাগ আপনার, একভাগ প্রতিবেশীর ও একভাগ আত্মীয়স্বজনের।মাংস বিতরনের ক্ষেত্রে যারা কুরবানী দেয়নি বা দেয়ার সামর্থ নেই তাদের অগ্রাধিকার দিন। মাংস ভাগ করার জন্য দাড়িপাল্লা ব্যবহার করুন। অনুমান করে ভাগ না করাই শ্রেয়।

কি নিয়ম Qurbani করবেন? কি কি বিষয় সচেতন হতে হবে? how to do qurbani rules and preparation/How to perform Qurbani – Islamic

• ঈদের নামাজ পড়ে এসে পশু কুরবানী করুন।
• জবাই করার আগে পশুকে প্রচুর পরিমানে পানি খাওয়ান।
• পশুকে শুইয়ে এমনভাবে টানা হেচড়া করবেন না যাতে পশু কষ্ট পায় এবং চামড়া ছিলে যায়। এটা ধর্মীওভাবেও নিষেধ করা হয়েছে।
• সবচেয়ে ভালো হয় এবং যদি সম্ভব হয় গরু বা ছাগল-যে পশুর চামড়াই ছাড়াতে চান না কেন, অবশ্যই নাইলনের মোটা দড়ি দিয়ে শক্ত কোনো খুঁটির সঙ্গে পশুটি ঝুলিয়ে দিলে। এতে চামড়া টানাহেচড়া জনিত কারনে নষ্ট হওয়া থেকে রক্ষা পাবে।
• চামড়া ছাড়ানোর ক্ষেত্রে ধারালো ছুরি ব্যাবহার করুন। ভোঁতা ছুরি দিয়ে ছাড়ানোর সময় চামড়া ছিঁড়ে যেতে পারে।
• ছাগলের চামড়ার ক্ষেত্রে অনেকেই ছুরি দিয়ে কেটে নেওয়ার পর টান দিয়ে নিচের দিকে নামাতে থাকে। এতে একটু ভুলেই চামড়া ছিঁড়ে যেতে পারে চামড়া।
• চামড়া ছাড়ানোর পর অনেকেই তা যেনতেনভাবে মাটিতে ফেলে রাখে। একটু সময় করে ভাঁজ করে রাখুন।
• চামড়ার গায়ে যাতে মাংশ বা চর্বি লেগে না থাকে সেদিকে লক্ষ রাখুন। আমাদের দেশে কুরবানীর সময় দক্ষ কসাইয়ের অভাব থাকে বিধায় এ সমস্যা বেশি থাকে। এ ক্ষেত্রে মাংশের পচনের মাধ্যমে চামড়ার পচন তরান্বিত হয়।
• ছাগল বা গরুর মাথার চামড়াও মূল্যবান। এটি আলাদা করার সময় অবহেলা করা উচিত নয়।

পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন / কুরবানীর পশু জবাই ও করণীয়

– নিয়ম অনুসারে পশু জবাই করুন। জবাই এর জন্য ধারালো ছুরি ব্যবহার করুন।
-জবাইকৃত পশুর রক্ত ফেলার জন্য আগেই গর্ত করে রাখুন।গর্ত করা সম্ভব না হলে ড্রেন কিংবা উপযুক্ত কোনো যায়গায় রক্ত ফেলার জায়গা করে নিন।
-মাংস কাটার জন্য অভিজ্ঞ কসাই নিযুক্ত করুন। এজন্য ঈদের আগের দিন কসাই নির্বাচন করে রাখা ভালো। অনভিজ্ঞ কসাই চামড়া কাটতে অনেক সময় নিতে পারে, পশুর চামড়া নষ্ট করতে পারে অথবা মাংসে বালু লাগাতে পারে।
-মাংস কাটার জন্য উপযুক্ত স্থান নির্বাচন করুন। সিড়ির নিচে অথবা এমন কোনো জায়গা নির্বাচন করবেন না যাতে মানুষের চলাচলের সমস্যা হয়।
-যেখানে সেখানে পশুর ভুড়ি কেটে জায়গা নোংরা করবেন না। যাকে ভুড়ি দিবেন তাকে কাটার জন্য উপযুক্ত জায়গা (যেমন ড্রেন কিংবা ডাস্টবিনের পাশে) দেখিয়ে দিন।
-গরুর গোবর, আবর্জনা গন্ধ ছড়ানোর আগেই পরিষ্কার করুন। আপনার এলাকা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন ও অন্যকেও রাখতে উদ্ধুদ্ধ করুন।
Tag:
Qurbani rules hair, Rules Of Qurbani On Eid Ul Adha 2014, 2015,2016,

3861 D0 1 T0
Image of
Image of
Image of